চিড়িয়াখানায় এক পশুর খাবার হবে অন্য পশু

ডেস্ক রিপোর্ট | আপডেট : ২২ মে, ২০২০ শুক্রবার ০৬:০৪ পিএম

বর্তমানে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট উদ্ভুত পরিস্থিতিতে আর্থিক সংকটে পড়েছে চিড়িয়াখানা। যার ফলে টান পড়েছে পশুপ্রাণীদের খাবারেও। তাই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এক পশুকে হত্যা করে খাওয়ানো হবে অন্য পশুকে।

আলজাজিরা জানায়, ইন্দোনেশিয়ার দ্য বানডাং জু এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে জার্মানির একটি চিড়িয়াখানায় এমন খবর পাওয়া যায়।

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সেইসঙ্গে সেটিকে ঠেকাতে লকডাউন, এতে স্থবির হয়ে পড়েছে অনেক দেশ। বন্ধ হয়ে গেছে উৎপাদনের চাকা, বিপর্যস্ত অর্থনীতি। এতে খাদ্য সংকটে ভুগছে কোটি কোটি মানুষ।

এমন পরিস্থিতিতে কীভাবে বেঁচে থাকবে চিড়িয়াখানার পশুরা, সেই সংকট থেকে এমন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

বানডাং জু বছরে এক কোটি ২০ লাখ ইন্দোনেশীয় রুপি আয় করে দর্শনার্থীদের ফি থেকে। কিন্তু দেশটিতে ২৩ মার্চ থেকে শাটডাউন চলছে। ফলে জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব কিছুর মতো বন্ধ হয়ে গেছে চিড়িয়াখানাও।

চিড়িয়াখানাটির এক মুখপাত্র জানায়, তাদের ৮৫ টি প্রাণী আছে।

এগুলো প্রতিদিন খাওয়াতে ৪০০ কেজিরও উপরে ফলফলাদি এবং ১২০ কেজি মাংসের প্রয়োজন হয়। এর মধ্যে আমাদের মজুদ শেষ হয়ে এসেছে।

সুলহান সায়াফি নামে এই কর্মকর্তা বলেন, আমাদের ৩০টি হরিণ আছে, যাদের বয়স হয়ে গেছে এবং আমাদের আর প্রয়োজন নেই। এখন তাদের জবাই করে মাংসাশী প্রাণীদের যেমন সুমাত্রীয় বাঘ, জাভার চিতাবাঘকে খাওয়ানো হবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, ইন্দোনেশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২০ হাজার ১৬২ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন এক হাজার ২৭৮ জন।

সিটিজিসান ডটকম/আরএইচ

Print This Post