চট্টগ্রামে গ্রেফতার ১৫, পুলিশের দাবি ওরা হিযবুত তাহরির

সুজাউদ্দিন তালুকদার :: চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৫ যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিনগত রাতের নগরীর আন্দরিকল্লা শাহী জামে মসজিদ, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা, বায়েজিদ এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্য, এরা সবাই রাষ্ট্রীয়ভাবে নিষিদ্ধ সংগঠন হিযবুত তাহরীরের সক্রিয় সদস্য। গ্রেফতারদের মধ্যে মহানগর আমির ।

অভিয়ানকালে তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ প্রচারপত্র, নগদ দুই লাখ ৮২ হাজার টাকা, দুটি ল্যাপটপ, ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস, সংগঠনের গঠনতন্ত্র ও ট্রেনিং ম্যানুয়াল উদ্ধার করা হয়েছে দাবি পুলিশের।

গ্রেফতাররা হলেন- ওয়ালিদ ইবনে নাজিম (১৮), ইমতিয়াজ ইমাইল (২৫), আবদুল্লাহ আল মাহফুজ (৩০), আবুল মোহাম্মদ এরশাদুল আলম (৩৯), নাছির উদ্দিন চৌধুরী (২০), নাজমুল হুদা (২৭), লোকমান গণি (২৯), মো. করিম (২৭), আবদুল্লাহ আল মুনিম (২২), কামরুল হাসান রানা (২০), আরিফুল ইসলাম (২০), আজিম উদ্দিন (৩১), আজিমুল হুদা (২৪), ফারহান বিন ফরিদ (২৩) ও মো. স¤্রাট (২২)।

সিএমপি দক্ষিণ জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শাহ আবদুর রউফ বলেন, গ্রেফতারদের আবুল মোহাম্মদ এরশাদুল আলম (৩৯) হিযবুতের চট্টগ্রাম মহানগর শাখার প্রধান। চট্টগ্রামের ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষক তিনি। আবদুল্লাহ আল মাহফুজ নোভারটিস ফার্মাসিউটিক্যালসের চট্টগ্রামের টেরিটরি ম্যানেজার। তিনি সংগঠনটির চট্টগ্রাম শাখার দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা।

অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ) আমেনা বেগম শনিবার সকালে সিএমপি দামপাড়া কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠনটি এখনও সক্রিয়। গ্রেফতারদের মধ্যে অনেকেই শিক্ষার্থী। তাদের পরিবারের সদস্যরা জানত, তারা বিভিন্ন বিষয়ের কোচিং করার জন্য বাসা থেকে বের হচ্ছে। কিন্তু তারা হিযবুতের কার্যক্রমের সাথে যুক্ত ছিল।”

আমেনা বেগম বলেন, শুক্রবার দুপুরে আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ এলাকা থেকে প্রথমে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যেও ভিত্তিতে চান্দগাঁও এলাকার খদিজা ম্যানশনে অভিযান চালিয়ে মহানগর প্রধান এরশাদসহ ১১জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে পাঁচলাইশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে একজন এবং পলিটেকনিক এলাকা থেকে অপরজনকে গ্রেফতার করা হয়। ##

Print This Post