পতেঙ্গায় ‘ডিবি পরিচয়ে’ মাছ ব্যবসায়ীর দেড় লাখ টাকা নিয়ে হাওয়া ৩ যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট : ৩১ আগস্ট, ২০২১ মঙ্গলবার ১০:৪৫ পিএম

রাত তখন সাড়ে ১২ টা। মাছ ব্যবসায়ী মনিরের ঘরে প্রবেশ করেন তিন যুবক। একজনের হাতে ওয়াকিটকি, একজনের পরনে পুলিশের প্যান্ট- জুতা ও অন্যজন সিভিল ড্রেসে। নিজেদের তারা পরিচয় দেয় ‘ডিবির লোক’ হিসেবে। এরপর বাসায় অবৈধ জিনিস আছে বলে শুরু করে অভিযানের ‘নাটক’। কিছুক্ষণ তল্লাশির পর বিছানার নিচে রাখা মাছ বিক্রির এক লাখ ৫৩ হাজার টাকা নিয়ে চম্পট দেয় ওই তিন যুবক।— এমন ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থানা এলাকায়।

সোমবার (৩০ আগস্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে মুসলিমাবাদ এলাকার সাবেক কমিশনার হাজী শফিক গলির হাজী আবু বকর সওদাগরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী মনির আহম্মদ বোরহান (২৫) ও তার রুমমেট আরিফুল ইসলামসহ (২১) ওই বাড়ির একটি সেমি পাকা ঘরে ব্যাচেলর হিসেবে প্রায় দেড় বছর ধরে থাকেন। সে সাতকানিয়া উপজেলার উছিয়া ইউনিয়ন ৩ নম্বর ওয়ার্ডের খোলাল পাড়ার নজির আহম্মদের পুত্র।

ভুক্তভোগী মনির বলেন, ‘রাত প্রায় সাড় ১২ টা তখন। ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে আমার রুমে প্রবেশ করে তিন যুবক। তাদের মধ্যে দুইজনের বয়স ২৮ এবং অন্যজনের বয়স ২৬ বছর। এদের মধ্যে একজনের পরনে ছিল পুলিশের পোশাক। একজনের হাতে ছিল ওয়াকিটকি এবং অপরজন ছিলেন সিভিল ড্রেসে।’

তিনি বলেন, ‘তারা আমার ঘরে প্রবেশের পররপই অবৈধ মালামাল রয়েছে বলে তল্লাশি চালানো শুরু করে। কিছুক্ষণ তল্লাশি করার পর আমার বিছানার নিচে রাখা মাছ বিক্রির ১ লাখ ৫৩ হাজার টাকা নিয়ে যায়।’

বিষয়টি নিশ্চিত করে পতেঙ্গা থানার ওসি কবির হোসেন বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে৷ মনির আহম্মদ একজন মাছ ব্যবসায়ী। সে ব্যাচেলর বাসায় থাকত এবং তার সঙ্গে আরও একজন রুমমেট আছে।’

‘আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি অভিযুক্তরা ভুক্তভোগীর পরিচিত কেউ হতে পারে। ইতোমধ্যে তদন্ত কর্মকর্তা সেখানে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।’— যোগ করেন ওসি।

আরএইচআর/সিএস

Print This Post