যাত্রী সেজে জুতার মধ্যে ইয়াবা পাচার, রোহিঙ্গাসহ গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ শুক্রবার ০৬:৩০ পিএম

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় যাত্রীবাহী বাসে অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। এসময় তাদের জুতার তলা থেকে উদ্ধার করা হয় চার হাজার ৪০০ পিস ইয়াবা।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) পৃথক দুটি অভিযানে বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজে রোড এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তারর করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন— চন্দনাইশ থানার মধ্যম সাতবাড়িয়া বেপারী পাড়া এলাকার বাসিন্দা মো. আয়াছ ওরফে আজিজ (২৭) ও বালুখালী রোহিঙ্গা  শরণার্থী ক্যাম্প-২০ নং এর বাসিন্দা মো. রফিক। সে ওই ক্যাম্পের মৃত নুর বশরের ছেলে।

মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, তাদের কাছে তথ্য ছিল টেকনাফ থেকে ইয়াবা পাচার হচ্ছে চট্টগ্রামের উদ্দেশে। পরে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫ টার দিকে  চন্দনাইশ থানার  বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজে রোড এলাকা থেকে ২ হাজার ১০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয় মো. রফিককে।

এ ঘটনার মাত্র এক ঘণ্টা পর অর্থ্যাৎ সন্ধ্যা ৬টার দিকে একই এলাকা থেকে ২ হাজার ৩০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয় আজিজকে।

জুতার ভিতর কৌশলে ইয়াবাগুলো চট্টগ্রামে সরবরাহ করছিল আজিজ। তবে তাদের অভিযানে সেই প্রচেষ্টা ভণ্ডুল হয়ে যায়। তবে বাংলাদেশি নাগরিক আজিজ ও রোহিঙ্গা শরণার্থী ফারুকের মধ্যে কোন যোগসূত্র পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্ততের কর্মকর্তারা। তারা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, পৃথকভাবে সরবরাহ হচ্ছিল এই ৪ হাজার ৪০০ পিস ইয়াবা।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের বিভাগীয় অতিরিক্ত পরিচালক মো. মুজিবুর রহমান বলেন, ‘পৃথক অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

একই স্পটে এক ঘণ্টার ব্যবধানে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তাদের মধ্যে কোন যোগসূত্র পাইনি। তবে এ ব্যাপারে চন্দনাইশ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

সিএস

Print This Post