অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ গণি বেকারির

খাবারের উপকরণে কীটনাশক মেশায় বনজৌর, নোংরা পাত্রে রাখে দস্তগীর

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ মঙ্গলবার ১০:১০ পিএম

চট্টগ্রামের জিইসি মোড়ের বনজৌর, চকবাজারের গণি বেকারি ও মোমিন রোডের দস্তগীর হোটেলে অভিযান চালিয়ে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) তদারকিমূলক কার্যক্রম পরিচালনার সময় জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালকের অর্পিত ক্ষমতাবলে এবং জেলা প্রশাসকের সার্বিক সহায়তায় এ জরিমানা করা হয়।

এপিবিএন-৯ এর সহায়তায় পরিচালিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্লাহ ও জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান।

ভোক্তা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, ‘খুলশী থানার জিইসি মোড়ের বনজৌরকে খাবার তৈরির উপকরণের সঙ্গে কীটনাশক (ফিনিশ), খোলা ময়লার পাত্র রাখা ও মেয়াদবিহীন দুধ ফ্রিজে সংরক্ষণ করায় ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।’

‘একই প্রতিষ্ঠানকে বেশি দামে কোমলপানীয়ের ক্যান বিক্রি করায় একজন ক্রেতার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ৫ হাজার জরিমানা করা হয়।’— বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘চকবাজারের গণি বেকারিকে উৎপাদিত পণ্যের মোড়কে পরিমাণ ও মূল্য উল্লেখ না করা, মেঝেতে রেখে খাদ্যপণ্য মোড়কজাত করা, লেবেলবিহীন ফ্লেভার ব্যবহার, কারখানায় খোলা ময়লার পাত্র সংরক্ষণ ও উৎপাদিত বেকারিপণ্য চরম অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে সংরক্ষণ করায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানাসহ সতর্ক করা হয়।’

হাসানুজ্জামান বলেন, ‘কোতোয়ালী থানার মোমিন রোডের দস্তগীর হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টকে নোংরা পাত্রে খাবার তৈরি ও সংরক্ষণ, উৎপাদিত খাদ্য খোলা অবস্থায় রাখা এবং খাদ্যপণ্য সংরক্ষণে ছাপানো নিউজপ্রিন্ট ব্যবহার করায় ৩০ হাজার টাকা জরিমানাসহ সতর্ক করা হয়।’

আরএইচআর/সিএস

Print This Post