করোনায় আইআইইউসি সর্বোচ্চ ওয়েভার দিয়েছে চট্টগ্রামে : ভাইস চ্যান্সেলর

আইআইইউসি প্রতিনিধি | আপডেট : ১৩ জুলাই, ২০২০ সোমবার ১১:৪০ এএম

‘শিক্ষা কার্যক্রম নির্বিঘ্ন ও গতিশীল রাখার জন্য সেখানে শিক্ষকগণই হচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৃত প্রাণশক্তি। যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ম ও প্রথা বিরোধী গুটিকয়েক শিক্ষার্থীও অবুঝ থাকে। তাদেরকে বোঝানোর দায়িত্ব ওই শিক্ষকদের নিতে হবে’— এমটাই বলেছেন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি)’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে.এম. গোলাম মহিউদ্দিন।

রবিবার (১২ জুলাই) আইআইইউসি আয়োজিত ‘মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম নির্বিঘ্ন রাখতে শিক্ষকদের করণীয়’ এক অনলাইন সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী।

ভাইস চ্যান্সেলর বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন যাতে বিঘ্নিত না হয়, সেদিকে সবার সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে ওই শিক্ষকের। শুধু তাই নয়, এসব শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন সচল রাখার ক্ষেত্রে কোন অন্যায়ের সঙ্গে বিন্দুমাত্র আপোস করা হবে না।’

মহামারী করোনা প্রসঙ্গে টেনে প্রফেসর কে.এম. গোলাম মহিউদ্দিন বলেন, ‘করোনাকালীন সব শিক্ষার্থীদের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে চট্টগ্রামে আইআইইউসি সর্বোচ্চ ওয়েভার দিয়েছে। মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলের উপর, সিবলিংস, সেমিস্টারের ফলাফলের উপর, মুক্তিযোদ্ধা কোটা, অতিদরিদ্র কোটা, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স সম্পন্ন করে মাস্টার্স-এ ভর্তি হওয়ার সময় দেয়া হয়েছে।’

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, আইআইইউসি’র ট্রেজারার, বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, সেন্টার পরিচালক, রেজিস্ট্রার, প্রক্টর, প্রোগ্রাম সমন্বয়ক, শিক্ষক, কর্মকর্তা সহ মোট ১৭০ কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন।

সিটিজিসান ডটকম/সিএস

Print This Post