হাটহাজারীতে জমিরের জুয়ার আসরে রাত নামলেই ভিড় জমে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট : ১৩ নভেম্বর, ২০২১ শনিবার ১০:২৫ পিএম

চট্টগ্রামের হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি মহাসড়কে পৌরসভার আব্বাসিয়াপুল এলাকায় চলছে জুয়ার আসর। এলাকার উঠতি তরুণদের জন্য এই জুয়ার আসর বড় ধরণের হুমকি হয়ে দাড়িয়েছে।

আব্বাসিয়াপুল এলাকার একটি চায়ের দোকানের আড়ালেই চলছে এই জুয়া। গভীর রাত হলেই জুয়াড়িদের আনাগোনা বেড়ে যায় এই স্থানে। পাশাপাশি চলে মদ, ইয়াবা সেবনও।

কলেজ পড়ুয়া ছাত্র থেকে দিনমজুর, রাজমিস্ত্রি, ভ্যান চালক, অটোরিকশা চালক, ভাসমান ব্যবসায়ী, ভাঙ্গারি ব্যবসায়ীরা এই চায়ের দোকানে রাত নামলেই ভিড় জমায় জুয়ার নেশায় বুদ হতে।

স্থানীয়রা জানান, ময়মনসিংহ জেলার এক ব্যক্তি চায়ের দোকান চালাবে বলে দোকানটি ভাড়া নিয়েছিল স্থানীয় জমিরের কাছ থেকে।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় মো. জমির নামে ওই ব্যক্তির নিয়ন্ত্রণে এই জুয়ার আসর। দোকানটির মালিকানাও জমিরের। তার সেকেন্ড ইন কমান্ড সিএনজি চালক মো. এরশাদ।

এদিকে পরিশ্রমের টাকা এই জুয়া খেলায় হারিয়ে অসংখ্য শ্রমজীবীর পরিবার হয়েছে নিঃস্ব। টাকা হারিয়ে দেউলিয়া হওয়া অনেক পরিবারে বেড়েছে পারিবারিক সহিংসতাও। এই জুয়ার আসর নিয়ন্ত্রণ যাদের হাতে যাদের ভয়ে স্থানীয় কেউ মুখও খুলছে না। ক্ষতি হওয়ার আশংকায় পুলিশ কিংবা র‍্যাবের কাছেও অভিযোগ দিতে যাচ্ছে না কেউ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানায়, ‘দীর্ঘদিন ধরে এই জুয়া চালু রয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন কয়েক দফা অভিযানে এসব বন্ধ করেছিল। কিন্তু অভিযানের পফ কিছুদিন বন্ধ থাকলেও আবার তা পুরোদমে চালু হয়ে যায়। এই জুয়ার আসরের মুল ওই দোকানের মালিক মো. জমির। তার সেকেন্ডে ইন কমান্ড সিএনজি চালক এরশাদ। এছাড়াও পুলিশের সোর্স নামে পরিচয় দেওয়া হাশিম নামে এক ব্যক্তিও জড়িত এই জুয়ার আসরে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহিদুল আলম বলেন, ‘এ ধরণের কোনো তথ্য উপজেলা প্রশাসনের জানা ছিল। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

সিএস