সাতকানিয়ার ৫ অবৈধ ইটভাটার চিমনি-কিলন ভাঙলো প্রশাসনের স্কেভেটর

ছবি: সংগৃহীত 

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ মঙ্গলবার ০৭:৫০ পিএম

পরিবেশগত ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসকের ইট পোড়ানোর লাইসেন্স না থাকায় চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলায় আদালতের নির্দেশে ৫টি ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে ধ্বংস করা হয়েছে কাঁচা-পাকা ইট।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ইটভাটাগুলোর চিমনি ও কিলন ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন। সঙ্গে ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক নূর হাসান সজীব।

গুঁড়িয়ে দেয়া ইটভাটাগুলো হল— এওঁচিয়ার মেসার্স খাজা ব্রিকস, মেসার্স মা ব্রিকস, মেসার্স আর বি এম ব্রিকস, ছনখোলা চূড়ামনি এলাকার মেসার্স কাজী এম ব্রিকস ব্রিকস ও এওচিয়া এলাকার মেসার্স বিসমিল্লা ব্রিকস কোম্পানী।

পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জমির উদ্দিন বলেন, পরিবেশগত ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসকের ইট পোড়ানোর লাইসেন্স না থাকায় এসব অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে এনফোর্সমেন্ট আইনে অভিযান চালিয়ে ৫টি অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এসব অবৈধ ইটভাটার  চিমনি ও কিলনও ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত ৭ ফেব্রুয়ারি এসব অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান বন্ধ রাখতে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের শরাণাপন্ন হলেও সেখানে পাত্তা পায়নি ২৩ ইটভাটার ১৮ মালিক। অবৈধ ইটভাটা বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছিলেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। এরপরই জরুরি বৈঠকে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন জরুরি বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয় ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে চট্টগ্রামে সব অবৈধ ইটভাটা বন্ধে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করার।

সিএস

Print This Post