ঝাঁজ বেশি কাঁচা মরিচের, দাম বেড়েছে সবজি-মাছ-গোশতের

ইছহাক বিন হোসেন | আপডেট : ০৩ জুলাই, ২০২০ শুক্রবার ১১:১০ এএম

বন্যা ও বৃষ্টির কারণ দেখিয়ে বাজারে কমেছে সবজির সরবরাহ। এতে প্রতিটি কাঁচাবাজারে ১০ টাকা করে বেড়েছে সব ধরনের সবজির দাম। তবে বাজারে প্রচুর সবজির সরবরাহ দেখা যায়।

এছাড়া গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি কাঁচা মরিচের দাম বেড়েছে ৯০-১০০ টাকা। একই সঙ্গে বেড়েছে ব্রয়লার মুরগী ও গোশতের দাম।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, দেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যা ও বর্ষার বৃষ্টির কারণে কমেছে সবজির সরবরাহ। বৃস্পতিবার (০২ জুন) নগরীর বেশ কয়েকটি কাঁচা বাজার ঘুরে এসব চিত্র দেখা যায়।

দেখা যায়, প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৯০ টাকা থেকে বেড়ে ১৬০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, পেঁপে ৫০ টাকা, ঢেঁড়শ ৫০ টাকা, কাকরল ৫০ টাকা, শসা ৫০, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা ও আলু ৩০ টাকা। একই সঙ্গে ডিমের হালিতে ৩৪ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৬ টাকায়।

এদিকে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে প্রক্রিয়াজাত মুরগীর মাংসের অংশ বিশেষ আমদানির ক্ষেত্রে শুল্কহার বাড়ানোর প্রস্তাবে প্রভাব পড়েছে মুরগি ও গোশতের বাজারে। সেখানে মুরগি কেজি প্রতি বেড়েছে ৫০-৫০ টাকা। এতে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৭০ টাকা, লেয়ার মুরগি ২৩০-২৪০ টাকা ও দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকা কেজি দরে। গরুর মাংস প্রতি কেজি ৭০০-৭৫০ টাকা।

এদিকে বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের সীমানায় সব ধরনের মাছ ও চিংড়ি আহরণ বন্ধ থাকায় বেড়েছে সামুদ্রিক মাছের দামও।

মাছের বাজারে প্রতি কেজি চিংড়ি বিক্রি হচ্ছে ৬৫০ টাকা, লইট্যা ১৫০-১৬০ টাকা, পাঙ্গাস ১৩০-১৫০ টাকা, পাবদা ৩০০ টাকা, রূপচাঁদা মাছ ৮০০-৯০০ টাকা। এছাড়া রুই ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা, কাতাল ৩০০-৩৫০ টাকা, নাইলেটিকা ১৩০-১৫০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

সিটিজিসান ডটকম/সিএস/ইবিএইচ

Print This Post