“শানে মোস্তফা (স.) চর্চা করা নবী প্রেমের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত” -বায়তুশ শরফ’র পীর

সুজা উদ্দিন তালুকদার, নিজস্ব প্রতিবেদক , ৮ নভেম্বর ২০১৯, ১০:১৫ পিএম

ছবি- সুজাউদ্দিন তালুকদার, ৮ নভেম্বর ২০১৯

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) উদ্যাপন উপলক্ষে চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়েছে “শানে মোস্তফা (সঃ)” নাত ও গজলের আসর। বায়তুশ শরফ আন্জুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশ’র উদ্যোগে আয়োজিত পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) এর ৪ দিনব্যাপি অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার (৮ নভেম্বর) বাদে মাগরিব এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বায়তুশ শরফের পীর হযরত মাওলানা মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (মঃজিঃআঃ)।

মজলিসুল উলামা বাংলাদেশের মহাসচিব মাওলানা মামুনুর রশিদ নূরী এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে মাওলানা মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন বলেন- “শানে মোস্তফা (স.) চর্চা করা নবী প্রেমের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত”। সুষ্ঠু, সুন্দর ও কল্যাণময় সমাজ গঠনে যেমন মানবতাবাদী পরিচ্ছন্ন সাহিত্য-সংস্কৃতি অপরিহার্য। হুজুরে করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সৌন্দর্য এতই পূর্ণ তাতে কোন অপূর্ণতার কল্পনাও করা যায় না। তিনি এমন পুষ্প যাতে কোন কাঁটা নেই। তিনি এমন আলো যাতে কোন ধোঁয়া নেই। দো-জাহানের যত কল্যাণ, আখেরাতের যত শান্তি, মন-মানষিকতার যত স্থিতি, এক কথায় দুনিয়া আখেরাতের যতসব কল্যাণ সব তাহার কাছেই ্এবং তাহার মাঝেই পাওয়া যায়। এমন কোনো নেয়ামত নেই যা হুজুর (সঃ) এর দরবারে নেই। হ্যাঁ একটি জিনিস নেই! আর তা হলো “না”শব্দ। অর্থাৎ কাউকে ফিরিয়ে দেয়া, বিমুখ করা এই দরবারে নেই। হে অতীব উত্তম উত্তম বাণীর ধারক-বাহক আমাদের প্রিয় নবী হযরত সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, আমরা আপনার সেই মহা মূল্যবান বাণীর উপর নিজেদের সপে দিলাম, যে বাণী গুলোর তুলনায় অন্য কোন বাণী কিছুই না। সে গুলো এমন মনি মুক্তা যা কোন সমালোচনা নেই, সে বয়ান এমন স্পষ্ট, যার ব্যখ্যা দরকার হয়না।

তিনি আরও বলেন, খোদার কসম! খোদা প্রাপ্তির একমাত্র দরবার হলো, দরবারে মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। দরবারে মোস্তাফা (সঃ) এ তাওহীদ ও রেসালাত ছাড়া অন্য কোন আশ্রয় ও ঠিকানা মিলবেনা।সুতরাং যে আল্লাহকে পেতে চায়, সে যেন দরবারে মোস্তফা হয়েই আল্লাহর কাছে যায়। আর দরবারে মোস্তফায় যার কোন উপস্থিতি নেই, মহান আল্লাহর দরবারেও তার জায়গা নেই।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা ্এর উপাচার্য প্রফেসর ড. আহসান উল্লাহ (আহসান সাইয়্যেদ), প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন-মদিনা কেন্দ্রিক ইসলামি সাহিত্যের যে যাত্রা শুরু হয়, তা ইসলামি দাওয়াতের সাথে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ে। পৃথিবীর যে কোন অঞ্চলের যে কোন ভাষার মানুষ ইসলাম গ্রহণ করেছে, তাদের কবি-সাহিত্যিকরা তাদের প্রতিভাকে ইসলামের সেবায় নিয়োজিত করেছেন। এভাবে ইসলামি সাহিত্যও আন্তর্জাাতিক রূপ পরিগ্রহ করেছে।

আল্লাহর হাবীব (সঃ) এর উচ্চ মানের পান্ডিত্যপূর্ণ বক্তব্যের সামনে আরবের যুগ শ্রেষ্ঠ কবি সাহিত্যিকরা ভাষা হারিয়ে অবাক হয়ে বোবা বনে গেছে। কাউকে এমন মনে হয় যেন সে বোবা হয়ে গেছে। একটি শব্দও বের হচ্ছে না। মনে হয় যেন তার মুখে কথা বলার জিহ্বা নেই। আবার কারো অবস্থা এমন নিঃস্ব হয়ে গেল , যেন তার শরীরে প্রাণের অস্থিত্ব নেই। রাসুলে করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর শান ও শওকতের বিবেচনায় দুনিয়ার কেউ তাহার ধারে-কাছেও যেতে পারেনি কখনো পরবেন্ াএত সত্বেও তিনি দয়া করে সবাইকে কাছে রাখতেন।সুতরাং যে কোন কেউ নৈরাশ হয়ে তাহার সান্নিধ্যে তালাশ করলে তার জন্যে আনন্দের সংবাদ হলো তিনি সর্বস্থানে সকলের অতি নিকটে অবস্থান করেছেন।

এটা হতে পারেনা যে, জান্নাত সুন্দর নয়। তবে জান্নাতের সৌন্দর্য্যরে একটি কল্পনা আছে, কারণ জান্নাততো নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নূর থেকেই সৃষ্ট। আর যে ব্যক্তি নিজের সিনাকে রসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মহব্বত দ্বারা মদিনা বানিয়ে নিয়েছে তার তুলনা জান্নাতও হতে পারেনা। তার নূরেতেই সব কিছু আলোকিত, তাহার নূরের সামনে সকল আলো লুকায়িত। যেমনিভাবে সুবহে সাদিকের আলো সূর্যের আলোর সামনে অস্থিত্বহীন হয়ে যায়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও শিক্ষানুরাগী আল্লামা কাজী নাছির উদ্দীন।

সে সময় উপস্থিত ছিলেন বায়তুশ শরফ আনজুমনে ইত্তেহাদ বাংলাদেশের সিনিয়র সহ-সভাপত্বি মীর মোহাম্মদ আনোয়ার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক লুৎফুল করিম, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) উদযাপন কমিটি ২০১৯ আহ্বায়ক মাওলানা ওবাইদুল্লাহ, যুগ্ম আহ্বায়ক হাফেজ মুহাম্মদ আমান উল্লাহ, আরো উপস্থিত ছিলেন, খতিব মাওলানা নুরুল ইসলাম, শাহজাদা মাওলানা আব্দুল হাই নদভী, শাহজাদা মাওলানা মুহাম্মদ ছলাহ্ উদ্দীন বেলাল, সাবেক ইসলামিক ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক- মাওলানা আবুল হায়াত মোহাম্মদ তারেক, ডা. আনোওয়ার হোসেন, মাওলানা কাজী জাফর আহমদ, মাসিক দ্বীন দুনিয়ার সম্পাদক- মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ.বি.কে. মহিউদ্দীন শামিম, নুরুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক, আল্হাজ্ব মিফতাহুল হুদা, হাজী আহমদ হোসাইন, মাওলানা হাফেজ নিজাম উদ্দীন, মাওলানা কাজী শিহাব উদ্দীন,শাহজাদা মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম, মাওলানা আব্দুশ শাকুর, মাওলানা নুরুদ্দীন মাহমুদ, মো. এহছানুল হক মিলনসহ আরও ানেকে।

শানে মোস্তফা (সঃ) গজলের আসরে দেশে বিদেশের বহু উর্দূ, ফারসী, বাংলা গজলের শায়েরের পদচারণায় বাদ মাগরিব থেকে বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণ উৎসব মুখর হয়ে উঠে। শায়েরদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মাওলানা হারুন কাদেরী, মাওলানা আশরাফ বিহারী, আমীর আলী শরিয়তপুরী, আবুল কালাম আজাদ, আবু দাউদ শাহ্ শরীফ, শাহেদুল করিম খান, শোয়াইব বিন হাবীব, মাওলানা আবদুন নূর, ইমাদ উদ্দিন সাআদ প্রমুখ।

Leave a Reply