‘নগরীতে ৫০ শতাংশ গাড়ি চলছে অবৈধভাবে’

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) দেবদাস ভট্টাচার্য বলেছেন, নগরীতে ৫০ শতাংশ গাড়ির রুট পারমিট আছে। বাকি ৫০ শতাংশ গাড়ি চলছে অবৈধভাবে।

রোববার সকালে নগরীর রেডিসন ব্লু চিটাগাংবে ভিউতে দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কমের আয়োজনে ‘উন্নয়নের মহাসড়কে চট্টগ্রাম, নাগরিক দুর্ভোগ, সমন্বয় ও করণীয়’ শীষর্ক গোলটেবিল আলোচনায় এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আমরা অবৈধ গাড়ির বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ শুরু করলেই রাস্তায় গাড়ি থাকে না।

সম্প্রতি অভিযান শুরু করলাম, গাড়ি টো করা শুরু করলাম। দেখি সড়কে কোন গাড়িই নেই। মানুষজনের দুর্ভোগের সীমা নেই। গোলটেবিল আলোচনায় রয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, বাংলানিউজের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন, দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক,
দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশের সম্পাদক রুশো মাহমুদ, একুশে টেলিভিশনের রেসিডেন্সিয়াল এডিটর রফিকুল বাহার, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, বাংলানিউজের চট্টগ্রাম ব্যুরো এডিটর তপন চক্রবর্তী, প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার, আগ্রাবাদ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারা আলম, পিএইচপি ফ্যামিলির পরিচালক জহিরুল ইসলাম রিন্টু, চট্টগ্রাম ওয়াসার সুপারিন্টেন্ড ইঞ্জিনিয়ার নুরুল বসার।

দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, প্রতিদিন আমাদের হাজার হাজার নাগরিক কাজের উদ্দেশ্যে বের হন। তারা যে প্রিয়জনের কাছ থেকে বিদায় নেন, পুনরায় তার কাছে যেন ফিরে যান সেটি চাই। তিনি বলেন, ১৯৭৮ সালে চট্টগ্রাম নগর পুলিশের যাত্রা শুরু। তখন ছিল ৭ লাখ মানুষ, সেখানে বর্তমানে ৬০-৭০ লাখ মানুষ।

কিন্তু তখনকার তুলনায় এখন সড়ক বাড়েনি। তখন আমাদের আওতাভুক্ত ছিল ৬০ বর্গকিলোমিটার জায়গা আর এখন ১৫২ বর্গকিলোমিটার। ‘কিন্তু সে পরিমাণে আমাদের লোকবল বাড়েনি। তখন ছিল ৩৯৫ জন, এখন ৯৫৫ জন জনবল। সার্জেন্ট দরকার আমাদের ২০৯ জন, কিন্তু আছে ১২১ জন। এর ফলে সড়কে নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। কারণ ১৯৭৮ সালে ৩০ হাজার গাড়ি ছিল। কিন্তু এখন মোটরবাহী গাড়িই আছে আড়াইলাখ। একটা সড়কের ওপর গাড়িই চলে ১৯ ধরনের।’ বলেন দেবদাস ভট্টাচার্য।

তিনি যানজট সমস্যা নিরসনে সকল পরিবহনকে একই ছাতার নিচে আসার জন্য উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘সব গাড়িকে একই ছাতার নিচে নিয়ে আসা হলে সমস্যা মিটবে। দিনশেষে আসন অনুযায়ী ভাড়া দেওয়া হবে তাদের। এরকম হলে সড়কে আড়াআড়িভাবে গাড়ি রেখে পেছনের গাড়িকে চলতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে না।’ সুত্র : বাংলানিউজ।