মোরশেদ খানকে টিকিট না দিতে বিএনপির একাংশের হুমকি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম


চট্টগ্রাম | ২৬ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার, ১১: ২৯ পিএম |

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনে বিএনপির সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এম মোরশেদ খানের মনোনয়নের বিরোধীতা করেছেন বিএনপি একাংশের নেতাকর্মীরা। তাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে বিএনপির এই সব নেতাকর্মীরা পদত্যাগ করার হুমকি ঘোষনা দেন।

সুতে জানা যায়, এম মোরশেদ খানকে চট্টগ্রাম-৮ আসন থেকে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে। এই খবরে নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি । এর প্রেক্ষিতে গতকাল রবিবার বিকালে মহানগরের একটি হোটেলে এক জরুরী বৈঠকে সমবেত হয়ে এসব নেতৃবৃন্দ।

বৈঠে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মোরশেদ খান তার নির্বাচনীয় এলাকায় একাধিকবার বিএনপির এমপি ও মন্ত্রী হয়েছেন। কিন্ত গত দশ বছরে একদিনের জন্যও নির্বাচনী এলাকায় আসেননি। হামলা মামলায় জর্জরিত নেতাকর্মীদের কোন খোঁজ খবর রাখেন নি। আন্দোলন সংগ্রামে তার কোন ভুমিকা ছিলো না। তাবে দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হলে আমরা পদত্যাগ করতে বাধ্য হবো।

বৈঠেকের সভাপতিত্ব করেন- চসিকের সাবেক কাউন্সিলার মহানগর বিএনপির সহসভাপতি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন।

সভায় বক্তব্য রাখেন- চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহসভাপতি সাবেককাউন্সিলর মাহবুবুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন লিপু, মনজুর আলমমঞ্জু, সহ-সাধারণ সম্পাদক জি এম আইয়ুব খান, মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক মো.বখতেয়ার, বোয়ালখালী পৌরসভা বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র আবুল কালাম আবু, মহানগর বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইদ্রিস আলী, মোহরা ৫ নংওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি জানে আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলমহিরামন, পূর্ব ষোলশহর ৬ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক কাউন্সিলর মো. হাসান লিটন, পাঁচলাইশ ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদকএস এম আবুল কালাম আবু প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালের নির্বাচনে মোরশেদ খান চট্টগ্রাম-৮ আসন থেকে নির্বাচন করেন। সেবার জয়লাভ করার পর বিএনপি সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হন। ওয়ান-ইলেভেনের সময় তিনি বিদেশে পাড়ি জমান। ২০০৮ সালে এ আসন থেকে মহানগর বিএনপির তৎকালীন যুগ্ম সম্পাদক এরশাদ উল্লাহ নির্বাচন করেন। কিন্তু মহাজোটের প্রার্থী মাঈনউদ্দিন খান বাদলের কাছে হেরে যান তিনি।

সিএস/সিএম/এসআইজে