হলে গরুর মাংস ‘নিষেধ’ করিনি! এটা ভূল

ইবি প্রতিনিধি :: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ডাইনিংয়ে গরুর মাংস নিষিদ্ধের পর প্রত্যাহার হয়েছে।

শুক্রবার ডাইনিংয়ে গরুর মাংস নিষিদ্ধের অভিযোগ ওঠে প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দারের বিরুদ্ধে। ছাত্রদের প্রতিবাদের মুখে শনিবার বিকেল ৩টায় ডাইনিং ম্যানেজারের সঙ্গে বৈঠকে গরুর মাংস নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার হয়।

হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক নোটিশে প্রতি শুক্রবার আবার গরুর মাংস রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হলে শুক্রবার খাবারের তালিকায় গরুর মাংস রাখা হয়। বৃহস্পতিবার গরুর মাংস রান্না বিষয়ে হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার ম্যানেজারকে শাসান এবং গরুর মাংস খাবারের তালিকায় রাখতে নিষেধ করেন।

ডাইনিং ম্যানেজার তোতা মন্ডল জানান, বৃহস্পতিবাার রাতে ডাইনিংয়ে খাবারে তালিকায় গরুর মাংস রাখায় প্রভোস্ট ফোন দিয়ে আমাকে শাসান। তিনি জিজ্ঞেস করেন, কার কাছে অনুমতি নিয়ে হলে গরুর মাংস বিক্রি করা হচ্ছে? এ হলে গরুর মাংস বিক্রি নিষিদ্ধ।

তোতা মন্ডল বলেন, আমি গরুর মাংস রান্নার আগে পোলাও রান্না করি বৃহস্পতিবার রাতে। যেহেতু গরুর মাংস দিতে নিষেধ করে তাই ডাইনিংয়ে পোলাও দিতে পারিনি। পরে তা নষ্ট হয়।

শুক্রবার দুপুরে খেতে গিয় গরুর মাংস না পেয়ে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা এর প্রতিবাদ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ এ বিষয়ে প্রভোস্টকে ফোন করে কারণ জানতে চান। তবে প্রভোস্ট গরুর মাংস নিষিদ্ধের বিষয়টি অস্বীকার করেন।   

প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোদ্দার শুক্রবার বলেন, ‘অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। শিক্ষার্থীরা আমাকে অভিযোগ করেছে ডাইনিংয়ে একেক সপ্তাহে একেক রকম খাবার যেন দেওয়া হয়। এরপর ম্যানেজারকে বলেছি, ডাইনিংয়ে তোমার ইচ্ছামতো খাবার দিয়ে কেন অতিরিক্ত চার্জ দেখাবা? প্রতি মাসে তুমি যে খাবার দিবা সেটি তো আমরা তোমাকে নির্ধারণ করে দেব।’

শনিবার তিনি বলেন, ডাইনিং ম্যানেজারের সঙ্গে বৈঠক করে গরুর মাংস আগের নিয়মে দিতে বলেছি।