ঢাবিতে দু’ছাত্রীকে উত্যক্তের অভিযোগে বাঁশখালী চেয়ারম্যানকে মারধর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম

চট্টগ্রাম | ২২ এপ্রিল ২০১৯, সোমবার ০৯:৩৫ পিএম |

ঢাকা : ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির দুই ছাত্রীকে উত্যক্ত করার অভিযোগ তুলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্র কেন্দ্র (টিএসসি) মারধর করা হয়েছে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি তাজুল ইসলামকে। সোমবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় এঘটনা ঘটে।

তাজুল ইসলাম বাঁশখালীর বাহারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান। এছাড়া তিনি বাঁশখালী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর একান্ত সচিবের (পিএস) দায়িত্বপালন করছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আজ বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ইস্টওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ও এক ছাত্র ছুটির দিনে ঘুরতে আসেন। টিএসসিতে বসে আড্ডা দেয়ার সময় তাজুল ইসলাম দুই ছাত্রীকে লক্ষ্য তার প্যান্টের পকেটে হাত দিয়ে অনেকক্ষণ যাবত গোপন অঙ্গ নড়াচড়া করতে থাকেন। পরে তারা বিষয়টি বুঝতে পারলে তারা বন্ধু-বান্ধবী বসা থেকে দাঁড়ালে ওই লোক আস্তে আস্তে টিএসসির গেইটের দিকে হাঁটতে থাকেন।

এরপর তাজুলও বিষয়টি টের পেয়ে নিজেকে রক্ষা করে দৌড়াতে থাকেন। এসময় তিন শিক্ষার্থী টিএসসির গেইটম্যান কিরণকে ইশারা দিয়ে তাকে থামাতে বলেন। ওই লোক তখন টিএসসির মেইন গেইটের সামনে চলে আসেন। সেখানে তারা তিনজনই অভিযুক্ত তাজুল ইসলামকে মারধর করেন।

এরপর ঘটনাটি উপস্থিত সবার কাছে জানাজানির একপর্যায়ে তাজুল ইসলাম তার এলাকা বাঁশখালীর স্থায়ী বাসিন্দা ঢাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী সুমনকে বিষয়টি জানান। কিছুক্ষণ পর সুমন কয়েকজন লোক নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন।

এদিকে ঘটনার পর ঘটনাস্থলে এসে হাজির হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের সদস্যরা। তারা তাজুল ইসলাম ও ওই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। ঘটনাটি শুনে তিনি ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ওই তিন শিক্ষার্থীকে থানায় দিতে প্রক্টরিয়াল টিমের সদস্যদের নির্দেশ দেন। এপর সুমন ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামকে নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

এই প্রসঙ্গে তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আমি টিএসসিতে দাঁড়িয়ে প্যান্টের পকেটে হাত রেখে মুঠোফোনে কথা বলছিলাম। এর চেয়ে আর বেশি কিছু ঘটেনি। আমি টিএসসির স্থান ত্যাগ করার সঙ্গে তারা আমার পিছু নেয়। পরে তারা পিছন থেকে আমাকে ডেকে মারধর করেন।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী সুমন সাংবাদিকদের বলেন, তাজুল ইসলাম আমার এলাকার। তিনি একজন চেয়ারম্যান এবং সম্মানিত ব্যক্তি। তারা তাকে ব্যাপক মারধর করেছেন। এটা অন্যায় করেছে তারা। এজন্য তাদের সবাই পুলিশে দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির একজন ছাত্রসহ দুইজন ছাত্রীকে থানায় সোপর্দ করেছে ঢাকা কর্তৃপক্ষ। যাচাই-বাচাই করে তাদেরকে অভিভাবকের হাতে দিয়ে দেওয়া হবে বলে জানান ওসি।

সিএস/সিএম/এসআইজে