চট্টগ্রাম-১২ বিএনপির তৃণমূলের দৌড়ে এনাম-গাজী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম


চট্টগ্রাম | ২৬ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার, ১১: ৪৫ এএম |

চট্টগ্রাম-১২ আসন থেকে বিএনপির পক্ষ থেকে বেশকয়েকজন নেতা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সবার দাবি একটাই- দল থেকে যাকে মনোনয়ন দিবেন তার পক্ষে কাজ করা অঙ্গিকার।

ইতোমধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন- চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য মো. শাহজাহান জুয়েল, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্নসাধারণ সম্পাদক গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উল্ল্যাহ, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহসভাপতি এনামুল হক এনাম, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সৈয়দ মো. শাহদাত আহমেদ, দক্ষিণ জেলা স্বেচ্চাসেবক দলের সভাপতি সাবেক চবির ছাত্রদল নেতা মো. সাইফুদ্দিন সালাম মিঠু।

বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীরা জানান, আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে দল থেকে এমন প্রার্থী চায় যাঁরা দলের দুঃসময়ে দলের হাল ধরেছেন। নেতাকর্মীর খোঁজ খবর ও পাশে ছিলেন। তাদেরকে দল থেকে মনোনয়ন দিলে পটিয়া আসনের বিএনপি বিপুল ভোটে বিজয় সুনিশ্চিত এমন আশাবাদি।

তারা আরো জানায়, বর্তমান সরকারের দুঃসময়ে দলের পাশে ছিলেন না, নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নেন নি ওইসকল নেতাদের মনোনয়ন না দেয়ার দলের হাইকমান্ডের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

এদিকে তৃণমূল নেতাকর্মীর পছন্দের তালিকায় রয়েছেন দুই তরুণ নেতা। এরা হলেন- চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহসভাপতি এনামুল হক এনাম ও মহানগরের বিএনপির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সাবেক মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উল্ল্যাহ। দল থেকে এই দুই নেতাকে মনোনয়ন দেয়ার শতভাগ আশাবাদি। যে কোন একজনকে দল থেকে মনোনয়ন দিলে ধানের শীষে বিপুল ভোটে বিজয় সুনিশ্চিত হবে।

চট্টগ্রাম-১২ আসনের বিএনপির তৃণমুলের দু’টি অংশই এই দু’নেতার পক্ষে গণসংযোগ করছেন। তারা দু’জনের পক্ষে নির্বাচনীয় মাঠে কাজ করার অঙ্গিকারবদ্ধ।

বিএনপি নেতা গাজী সিরাজের সঙ্গে তৃণমূলের একটা অংশ জানায়, বিএনপির দুঃসময়ে রাজপথের কারা নির্যাতিত অন্যতম নেতা মহানগর বিএনপির যুগ্নসাধারণ সম্পাদক গাজী সিরাজ পক্ষে নির্বাচনীয় মাঠে ইতোমধ্যে গণসংযোগ ও বিভিন্ন ধরনের সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে চালিয়ে যাচ্ছেন। তফসিল ঘোষণার পর এলাকায় গণসংযোগও করেছেন তিনি। তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি- গাজী সিরাজ একজন ক্লিন ইমেজ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নেতা। সমগ্র পটিয়াবাসীর একটা বিরাট অংশ তার পক্ষে নির্বাচনীয় মাঠে থাকার পক্ষে। গাজীকে দল থেকে মনোনয়ন দিলে ধানের প্রতীকে ঘরে উঠবে জয়ের মালা।

অপরদিকে, বিএনপির তৃণমূলের আরেক অংশের সমর্থন রয়েছে এনামুল হক এনামের পক্ষের। তারাও দুঃসময়ে এই নেতাকে দল থেকে মনোনয়ন দেয়ার জন্য আহবান জানিয়েছেন।

জানা যায়, ১৯৯১ ও ২০০১ সালে চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে সংসদ সদস্য ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান জুয়েন। বিএনপির পটিয়ার তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি- দলের দুঃসময়ে ও দীর্ঘ ১২ বছর তিনি এলাকার ছিলেন না, দেশের বাইরে ছিলেন। কোন নেতাকর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ নেই তার। শাহজাহান জুয়েন মনোনয়ন দিলে দলের ভরাডুবির আশঙ্কা করছেন তারা।

জানতে চাইলে গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উল্ল্যাহ বলেন, এই প্রথমবার দল থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছি। দলের দুঃসময়ে তৃণমূল নেতাকর্মীদের পাশে ছিলাম ও আছি। মামলা। বর্তমান স্বৈরাশাসক সরকারের আমলে অসংখ্যাবার কারাবরণ করেছি। আমি পটিয়ার সন্তান। দলের মনোনয়ন পেলে শতভাগ বিজয় সুনিশ্চিত হবে আমার।

জানতে চাইলে এনামুল হক এনাম বলেন, দলের দুঃসময়ে নেতাকর্মীদের পাশে ছিলাম। বেশ কয়েকবার কারাবরণ করেছি। তৃণমূল নেতাকর্মীরা আমাকে চায়। দল থেকে মনোনয়ন পেলে আমি বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করতে পারবো।

সিএস/সিএম/এসআইজে