অসচেতন দম্পতিকে সচেতন বাবার উপহার!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম

ঢাকা | ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার ০৭:০০ পিএম |

বেড়ানো উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের কোতয়ালি থানার আলকরণ গিয়েছিলেন ইকবাল নামে দম্পতি। সঙ্গে ছিল তার আট বছর বয়সি শিশু কন্যা মাইশা। যাওয়ার সময় তিনজন একসঙ্গে বাসা থেকে বের হলেও শিশু মাইশা ছাড়াই দুইজন একাকী ঘরে ফেরেন ওই দম্পতি।

গতকাল শনিবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে নগরের আলকরণ থেকে মাইশার বাবা বাইকে চড়ে কাজে চলে গেলেও মা মুক্তি তাকে নিয়ে সিএনজি অটোরিকশা করে ঘরে ফেরার কথা ছিল। মায়ের অজ্ঞাতের কারণে বাবার পিছনে দৌড়াতে থাকে মাইশা। পরে মা মাইশাকে না পেয়ে একাকী বাসায় ফেরেন মুক্তি।

এদিকে বাবার পিছনে দৌড়াতে গিয়ে পথ হারিয়ে ফেলে মাঈশা। কোতয়ালি থানার মেরিনার্স রোডে আলকরন থেকে সে এলোমেলো হাটতে হাটতে থাকে। সেখানে তাকে একাকী হাটতে দেখে তার কাছে যান আরেক বাবা শওকত জেহাদী। হারিয়ে গেছে নিশ্চিত হয়ে তিনি মাঈশাকে নিয়ে আসেন থানায় আসেন।

পরে পুলিশ বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে যোগাযোগ করে খুঁজে বের করে মাইশার বাবা-মাকে। অবশেষে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে মাঈশা ফিরে পাই বাবা-মাকে। নিজেদের অসচেতনতার জন্য বিব্রত হন ইকবাল-মুক্তি। পাশাপাশি সচেতন আচরণের জন্য ধন্যবাদ দেন শওকত জেহাদীকে।

জানতে চাইলে কোতয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, গতকাল শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে ইকবাল দম্পতি বেড়ানো উদ্দেশ্যে বাইকে চড়ে শিশু মাইশাকে নিয়ে বের হয়। নগরের আলকরণ এলাকায় বাবা বাইকে চড়ে কাজে চলে গেলেও মা মুক্তি মাইশাকে নিয়ে সিএনজি অটোরিকশা করে ঘরে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু মাইশা মায়ের অজান্তে বাবার বাইকের পেছনে দৌড়াতে গিয়ে পথ হারিয়ে পেলে। পরে শওকত জেহাদী নামে আরেক সচেতন বাবা মাইশাকে হারিয়ে গেছে নিশ্চিত হয়ে থানায় নিয়ে আসেন।

তিনি বলেন, পরে পুলিশ বিভিন্ন সুত্র ধরে মাইশার পিতা-মাতাকে খোঁজে বের করেন। এরপর থানায় ঢেকে মাইশাকে বুঝিয়ে দিল দম্পতিকে। এব্যাপারে প্রত্যেক পিতা-মাতাকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সিএস/সিএম/এসআইজে

Leave a Reply