প্রকাশ: ২৮ অক্টোবর ২০১৬, ১০:৪৬:৫৩

‘বিয়ের পর তো শ্বশুর-শাশুড়িও বাবা-মা’

mahi-04-06-16

অনলাইন ডেস্ক ::
চলচ্চিত্রের নায়িকা মাহিয়া মাহির গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল জন্মদিন। বিয়ের পর প্রথম জন্মদিনটি তিনি পালন করলেন সিলেট ও ঢাকায়। কেমন কাটল দিনটা—এ নিয়ে কথা হলো তাঁর সঙ্গে।

মাহিয়া মাহিজন্মদিন কীভাবে কাটালেন?
এবারের জন্মদিনটা অন্য রকম। প্রতিবার তো বন্ধুবান্ধব নিয়ে পালন করি। এবার সিলেটে শ্বশুরবাড়িতে ছিলাম। ১২টা ১ মিনিটে আমার শাশুড়ি নিজ হাতে দুধ-ভাত মাখিয়ে খাইয়ে দিয়েছেন আমাকে। অপুও আমার জন্য কেক এনেছিল। অপুর বড় চাচা, যাঁকে বাসার সবাই ভয় পায়, আমি তাঁকে বড় বাবা বলে ডাকি। জন্মদিনের প্রথম প্রহরে তিনি আমাকে ১০ হাজার টাকা দিয়েছেন। এটি আমার জন্মদিনের বিশেষ পাওয়া।

বিয়ের পর বাবা-মার বাইরে প্রথম জন্মদিনটা পালন করলেন। খারাপ লাগেনি?
না, খারাপ লাগেনি। বিয়ের পর তো শ্বশুর-শাশুড়িও বাবা-মা। মজার ব্যাপার হলো, জন্মদিনের কথা আমার বাবা-মা ভুলে গিয়েছিলেন। সিলেট থেকে ফোন করে তাঁদের আমি মনে করিয়ে দিয়েছি।

তা ছাড়া জন্মদিনের রাতটা সিলেটে কাটিয়ে আজ (বৃহস্পতিবার) দিনেই ঢাকায় বাবা-মার কাছে ফিরেছি। মা আমার জন্য বিশেষ বিশেষ খাবার রান্না করেছিলেন। অর্ধেক ঢাকা, অর্ধেক সিলেটে জন্মদিন পালন করলাম।

শুনলাম, দেশের বাইরে যাচ্ছেন?
বাবা-মাকে সঙ্গে নিয়ে কলকাতা যাচ্ছি। প্রায় এক বছর তাঁদের সঙ্গে কোথাও ঘুরতে যাওয়া হয়নি। তাই জন্মদিনকে ধরেই ঘুরতে যাচ্ছি।
আচ্ছা, নিজের অভিনীত ছবির বাইরে সর্বশেষ কোন ছবি দেখতে প্রেক্ষাগৃহে গিয়েছিলেন?

ঈদুল ফিতরের সময় প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে শিকারি ছবিটি দেখেছি। ভালো লেগেছে। নিজের ছবি হলে গিয়ে দুই-তিনবারও দেখি। সময় পেলে অন্য ছবিও হলে গিয়ে দেখা হয়।

শোনা যাচ্ছে, আবার জাজ মাল্টিমিডিয়ায় ফিরছেন?
আমি তো এ কথা কোথাও বলিনি। কয়েকটি পত্রিকায় খবরটি বেরিয়েছে। বলেছি, আমি অভিনয় করি। যে আমাকে নিয়ে কাজ করবেন তাঁর সঙ্গে কাজ করতে চাই। সেই ক্ষেত্রে জাজ-এর ঘরের ছবি হলেও সমস্যা নেই। -প্রথম আলো

সিটিজিসান.কম/রবি