প্রকাশ: ২১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৪:৩১:৪৯

কেঁদেই ফেললেন নরেন্দ্র মোদী!

modi

অনলাইন ডেস্ক : কানের পাশ দিয়ে গেল গুলি। তবুও গুজরাতে বড় জয় পেয়েছে বিজেপি। গুজরাত-হরিয়ানার নির্বাচন শেষে সংসদে বিজেপি সদস্যদের নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অতীতের নানা কথা মনে করে একবার নয়, দু’বার নয়, তিন তিনবার মোদীর চোখে এলো জল!

গুজরাত-হিমাচলের ভোটের পরে বিজেপি সাংসদদের সঙ্গে আজই ছিল মোদীর প্রথম বৈঠক। নিজের রাজ্যে টেনেটুনে পাশের ক্ষত ঢাকতে তিনি যে উদ্দীপনার মন্ত্র দেবেন, তা প্রত্যাশিতই ছিল। বৈঠকের শুরুতেই সকলে উঠে দাঁড়িয়ে করতালিতে স্বাগত জানান মোদীকে। পাশে তখন অমিত শাহ, লালকৃষ্ণ আদভানিরা। কিন্তু মোদী যে কেঁদেই ফেলবেন, ভাবতে পারেননি অনেকে!

বৈঠকে যুবক বয়স থেকে নিজের কঠিন রাজনৈতিক যাত্রার কথা শোনাচ্ছিলেন মোদী। পুরনো দিনের স্মৃতিচারণ বারবার উঠে আসছিলো তার কথায়। বক্তব্যে এল অটলবিহারী বাজপেয়ীর প্রসঙ্গও। গুজরাতে ২৬টি লোকসভা আসনের মধ্যে ২০টি জেতার পরে কী ভাবে হঠাৎই পিছন থেকে মোদীকে জড়িয়ে ধরে ‘সাবাশি’ দিয়েছিলেন বাজপেয়ী। এমন নানা কথা বলতে বলতেই আবেগ ঝরল প্রধানমন্ত্রীর।

মোদীর জন্য অবশ্য আবেগে ভেসে কান্নার ঘটনা এটাই প্রথম নয়। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেই সংসদের সেন্ট্রাল হলে বক্তৃতা দিতে গিয়ে কেঁদেছিলেন তিনি। নোট বাতিলের পর চৌরাস্তায় শাস্তি ভোগের কথা বলতে গিয়েও কেঁদেছেন তিনি। ফেসবুকের সদর দফতরে চোখের জল ঝরিয়েছেন মায়ের কথা বলতে বলতে।

মোদীর মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহ অবশ্য বিশ্লেষণ করেছেন মোদের এই আবেগময় আচরণের।

তিনি বলেন, ‘মোদী তো রাহুল গাঁধীর মতো রাজঘরানা থেকে আসেননি। মেহনত করে এই জায়গা অর্জন করেছেন। ফলে তাঁর গলায় আবেগ মানায়।’ সূত্র : আনন্দবাজার