প্রকাশ: ৩ আগস্ট ২০১৭, ১৬:৪৪:০৭

মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করবে জাতীয় পার্টি!

ঢাকা : বিরোধী দল হওয়া সত্ত্বেও মন্ত্রীসভায় জাতীয় পার্টির নেতাদের অবস্থানকে ‘লজ্জাজনক’ উল্লেখ করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি পেলেই মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করবে জাতীয় পার্টি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাম্প্রতিক পরিস্থিতির বিভিন্ন দিক উল্লেখ করে সরকারের সমালোচনা করেন এরশাদ।

এ সময এক সাংবাদিকরা মন্ত্রীসভায় থেকে জাতীয় পার্টির নেতারা কবে নাগাদ পদত্যাগ করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরাই বিরোধী দল। যদিও আমরা সরকারে আছি, আমাদের তিনজন মন্ত্রী ক্ষমতায় আছে… এটা আমাদের জন্য লজ্জার ব্যাপার। আশা করি এই লজ্জার হাত থেকে একদিন আমরা মুক্তি পাব।’

বর্তমান মন্ত্রীসভায় জাতীয় পার্টির সভাপতিমন্ডলীর তিনজন সদস্য রয়েছেন। এরা হলেন আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মুজিবুল হক চুন্নু এবং মশিউর রহমান রাঙা।

বিএনপি বিহীন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিরোধী দলে আসীন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এই দায়িত্ব থেকে তিনি অব্যাহতি নেবেন কি না– এমন প্রশ্নের উত্তরে এরশাদ বলেন, ‘আমাদের সবাইকে পদত্যাগ করতে হবে। আমি প্রধানমন্ত্রীকে এ বিষয়ে বলেছি। কথা হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী আমাকে এই পদটা দিয়েছেন, সম্মান দিয়েছেন। উনার সাথে আলোচনা না করে আমি উনাকে অসম্মান করতে চাই না। একটা সম্মানের ব্যাপার আছে।’

বিকল্পধারা বাংলাদেশের সাথে জাতীয় পার্টির জোট করার সম্ভবনা রয়েছে কী না জানতে চাইলে এরশাদের পাশে বসা জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, ‘আমরা বরাবরই বলে আসছি, আওয়ামী লীগ-বিএনপির বাইরে আমরা একটি পৃথক রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। বুধবার একটি বৈঠক ছিলো, সেখানে রাজনৈতিক ব্যাক্তিরা ছিলেন। কিছু রাজনৈতিক আলোচনা হয়েছে- তবে সিদ্ধান্ত গ্রহণের মত কথাবার্তা সেখানে হয় নি। এখন এ বিষয়ে প্রেসিডিয়াম ফোরামে আলোচনা হবে- আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হবে জোট হবে কি না।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, অবসরপ্রাপ্ত মেজর খালেদ আক্তার প্রমুখ।