প্রকাশ: ৩ মে ২০১৭, ১১:৫৯:৫৪

সাংবাদিক আহমেদ রাজুকে আটকে বিওজেএর উদ্বেগ

আহমেদ রাজু

আহমেদ রাজু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা :: দেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল নতুন সময় ডটকমের নির্বাহী সম্পাদক আহমেদ রাজুকে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করায় নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে বাংলাদেশ অনলাইন জার্নালিষ্ট অ্যাসোসিয়েশন (বিওজেএ)।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাংবাদিক সংগঠনটির সভাপতি জাহিদ ইকবাল ও সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম সরকার উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, ওয়ালটনের নিম্নমানের পণ্য নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর বিভিন্নভাবে হয়রানির শিকার হন সাংবাদিক আহমেদ রাজু। তবে সত্য ও তথ্যনির্ভর সংবাদ প্রকাশ করা থেকে বিরত হননি তিনি। এতে ওয়ালটনের রোষানলে পড়েন তিনি। শেষপর্যন্ত কোনোভাবে আহমেদ রাজুকে বাগে আনতে না পেরে তার বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিওজেএর নেতারা বলেন, সাংবাদিক রাজুকেআইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছে যা সংবিধানের মূল চেতনার সঙ্গে সাংঘর্ষিক৷ এই ধারাটি সংবাদপত্র ও নাগরিকের স্বাধীনতাকে খর্ব করছে, যা সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদের পরিপন্থি৷ ৩৯ অনুচ্ছেদে দেশের সব নাগরিকের চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি কতিপয় শর্ত সাপেক্ষে নাগরিকের বাকস্বাধীনতা ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হয়েছে৷

নেতৃবৃন্দ বলেন, ৫৭ ধারা যদি প্রচলিত থাকে, তাহলে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা অপব্যবহার করে অপছন্দের যে কাউকে দমন-পীড়ন চালানো যাবে৷ এমনিতেই মানুষ আতঙ্কে রয়েছে৷ আর এই আতঙ্ক থাকলে আর যাই হোক চিন্তার স্বাধীনতা থাকে না৷

বিওজেএর বলেন, এ আইনটি বাকস্বাধীনতা হরণের পাশাপাশি প্রতিপক্ষকে হয়রানির একটি মোক্ষম অস্ত্র৷ কারণ এই আইনে এমন সব অপরাধের কথা বলা হয়েছে, যেসব অপরাধের ব্যখ্যা নেই৷ তাই ইচ্ছে মতো এই আইনের অপব্যবহার সম্ভব৷

তাই অবিলম্বে আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা বাতিলের দাবিসহ অবিলম্বে সাংবাদিক আহমেদ রাজুর মুক্তি দাবী করেন বিওজেএর নেতৃদ্বয়।

সিটিজিসান.কম/রবি