চট্টগ্রামে ‘হানিফ পরিবহন’ কাউন্টার ভাঙচুর করলো ছাত্রলীগ-যুবলীগ!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম

চট্টগ্রাম : মহানগরের খুলশী থানাধীন দামপাড়া ‘হানিফ পরিবহন’র কাউন্টার ভাঙচুর করেছে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা।

শনিবার (১৩ অক্টোবর) দুপুর সোয়া ২টার দিকে কাউন্টার ভাঙচুর করে তারা। হানিফ পরিবহনের দায়িত্বরক কর্মকর্তাচারিদের দাবি, ভাঙচুরে তাদের বেশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ল্যাপটপ, নগদ টাকাসহ কিছু মালামাল খোয়া গেছে। প্রায় ৫০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে গণমাধ্যমকে।

এদিকে ভাঙচুরে অংশ নেয়া ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা দাবি করেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী মোহাম্মদ হানিফ যার একমাত্র মালিকানাধীন পরিবহন সংস্থা ‘হানিফ পরিবহন’। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার ষড়যন্ত্রে অংশ নেওয়াদের মধ্যে হানিফ অন্যতম। তার মালিকানাধীন হানিফ পরিবহনের গাড়ি চট্টগ্রামে চলতে দেয়া হবে না।

খবর পেয়ে খুলশী থানা একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন ও ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের সরিয়ে দেন। দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আবু সাদাত মো. সায়েম, ছাত্রলীগ নেতা তৌহিদুল আলম জেকি ও আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে ভাঙচুরের এ ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

হানিফ পরিবহনের নগরের দামপাড়া কাউন্টারের বিক্রয় প্রতিনিধি মাহবুব বলেন, আজ (শনিবার) হঠাৎ কিছু যুবক এসে বলে, উপরের নির্দেশে কাউন্টার ভাঙতে এসেছি। এরপর শুরু করে দিল হামলা। টাকা-পয়সা যা ছিল সব নিয়ে গেছে। চারটি ল্যাপটপ, দুইটি ডেস্কটপ কম্পিউটার, প্রিন্টার, নগদ প্রায় ৫০ হাজার টাকা, টিকিট বিক্রির আরও কিছু টাকা ছিল- যা ছিল সব নিয়ে গেছে তারা।

তিনি বলেন, হামলাকারীরা জেকি নামের একজনের নাম উল্লেখ করেছিল। সে হয়তো নেতৃত্বটা দিয়েছে। তারা বলেছিল, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ থেকে এসেছে। আমরা যখন ফোনে মহানগরের একজন নেতার সাথে কথা বলিয়ে দিতে চেয়েছি, তখন ওরা বলেছে আমরা মহানগরকে চিনি না এখন। যেহেতু আমরা দক্ষিণ জেলা থেকে এসেছি। তারা ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে।

এদিকে দুপুরে ভাঙচুরের সময় হানিফ কাউন্টারে থাকা বেশ কয়েকজন যাত্রী বলেন, কিছু সরকার দলীয় লোক হঠাৎ এসেই ভাঙচুরের আগে আমাদেরকে বলা হয়েছে, আপনারা বেরিয়ে যান নয়তো আপনাদের উপর হামলা হবে। এরপর আমরা বেরিয়ে গেলে ভাঙচুর শুরু হয়। টিকিট কিনেছেন নেপালের দুইজন নাগরিক। তারা দুইজনই ইউএসটিসির শিক্ষার্থী। পরে তারাও বেরিয়ে অন্যত্রে চলে যায়।

এছাড়া দামপাড়ায় কাউন্টার ভাঙচুরের আগে শাহ আমানত সেতু এলাকায় অবস্থান নিয়ে মিছিল-সমাবেশ করেন ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা হানিফ পরিবহনের দুটি কাউন্টারে তালা লাগিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত ভারপ্রাপ্ত (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন কোন ধরনরে মন্তব্যে করতে রাজি হননি।

সিএস/সিএম

Leave a Reply