চট্টগ্রাম-১২ আসনে বিএনপি’র প্রার্থী হচ্ছেন গাজী সিরাজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট । সিটিজিসান.কম

গাজী সিরাজ উল্লাহ

পটিয়া (চট্টগ্রাম): আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ আসনে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী সিরাজ উল্লাহ মনোনয়ন চাই। দল যদি মনোনয়ন দেয় তাহলে এই আসনে নির্বাচন করবো।

গাজী সিরাজ বলেন, আমি দলের দুদিনে এশিয়ার মহাদেশের সর্ববৃহৎ ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের দীর্ঘসময়ে চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতির একনিষ্ঠভাবে দায়িত্ব পালন করেছি। আমি দলের কাছে মনোনয়ন চাইবো এবং দল মনোননয়ন দিলে অবশ্যই নির্বাচন করবো।

পারিবারিকভাবেই বিএনপি’র রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, পটিয়া বিএনপিতে যে বিরোধ রয়েছে সেখানে তরুণ নেতৃত্বকে মনোনয়ন দিলে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবে।

একনজরে গাজী সিরাজ উল্লাহ-

গাজী সিরাজের পিতা মরহুম গাজী দুলা মিয়া বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়ার আমলে থানা বিএনপি’র সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন এবং গ্রাম সরকার ছিলেন। গাজী সিরাজ ১৯৯৫ সালে পটিয়া থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, ১৯৯৩-৯৪ সালে হুলাইন ছালেহ নুর ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে পশ্চিম পটিয়া এ.জে. চৌধুরী ডিগ্রি কলেজ, ৯ নং বড়লিয়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের রাজনীতি করেন। ১/১১ এর সময় বিএনপি চেয়ারপার্সন গ্রেপ্তার হলে প্রতিবাদে মিছিল করে নগর ছাত্রদল,সেবার আটক হন তিনি। ১৯৯৬-২০০০ সাল পর্যন্ত তিনি চট্টগ্রাম আইন কলেজে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০০২ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত চট্টগ্রাম মহানগরী ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন। পর্রবতীতে নিজ রাজনৈতিক মেধামননে ২০১৩ সালে চট্রগ্রাম নগর কমিটির সভাপতি এবং ২০১৮ সাল থেকে নগর বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের পূর্নাঙ্গ কমিটিতে তিনি যুগ্ম সাধারন সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করছেন।

চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেনের অত্যন্ত আস্থাভাজন বলে নগর জুড়ে বিএনপির সকল নেতাকর্মীর কাছে গাজী সিরাজের গ্রহন যোগ্যতা অন্যান্য উচ্চতায় রয়েছে দলের সুত্রে জানা গেছে।

এদিকে বিএনপি’র স্হায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌঃ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল্লাহ আল নোমান, মীর নাছির, মোর্শেদ খান,আবু সুফিয়ান,আবু বক্করসহ হেভিয়েট নেতাদের সর্মথন রয়েছে গাজী সিরাজ উল্লাহর দিকেই। তারা চায় তুরুণ নেতৃত্বে উঠে আসুক। বিএনপি’র ভবিষ্যত নেতৃত্ব দেবে তরুণ নেতারাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্চুক বিএনপি অফিসের এক নেতা বলেন- নির্বাচনী প্রার্থী তালিকায় এবার তরুন নেতৃত্বকেও প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। চট্রগ্রামের আসন গুলোর মধ্যে অন্যতম বিরোধ পূর্ণ আসন চট্টগ্রাম-১২। এ আসনের বিরোধ মীমাংসায় তরুন নেতৃত্বকে প্রাধান্য দিলে সে তালিকায় মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী সিরাজের নাম সবার উপরে উঠে এসেছে।

এ ব্যাপারে বিএনপির মনিটরিং সেল তথ্য সংগ্রহ করছে। চট্টগ্রাম-১২ আসনে বিশেষ করে সাবেক এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানদের বিরোধ তুঙ্গে, তবে সবার নিকটই গাজী সিরাজ স্নেহের বিধায়, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বিরোধ মীমাংসায় প্রার্থী হিসেবে গাজী সিরাজকেই পারফেক্ট ভাবছে।

এ ব্যাপারে গাজী সিরাজকে বলেন- দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা আন্দোলন এবং নির্বাচন দুটোকেই লক্ষ্য করে এগুচ্ছে দল। আগে আমাদের গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রীর মুক্তি, তারপর নির্বাচন, মা’কে জেলে রেখে কোনো নির্বাচনে বিএনপি যাবে না। প্রয়োজন আমরা চট্রগ্রাম থেকে সর্বদলীয় ছাত্রজনতা মিলে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবো।

নির্বাচনী প্রার্থী হিসেবে আপনি আসছেন জানতে চাইলে তিনিকে বলেন, চট্টগ্রাম-১২ আসন দেশনেত্রীকে উপহার দিতে প্রথমে ঐ আসনের বিরোধপূর্ণ ইউনিটগুলোকে এক করতে হবে। আর সে লক্ষ্যে আমি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। নিয়মিত নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখছি। আমি বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। এছাড়াও দল যদি অন্য কাউকেও প্রার্থী হিসেবে দেয় তার জন্যও কাজ করতে সর্বদা প্রস্তুত আছি। আমি বিরোধ চাইনা’ চাই আসনটি বিএনপিকে পুনরায় উপহার দিতে। পটিয়ার মাটিকে পুনরায় বিএনপির ঘাটি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। ছাত্রদল, সেচ্ছাসেবক দল, যুবদলকে সংগঠিত করেই নির্বাচনী বৈতরণী পার করবো ইনশাল্লাহ।

তিনি আরো বলেন- আমি পটিয়ার সকল নেতাকর্মীদের কাছে অনুরোধ করবো আপনারা ঐক্যবদ্ধ হউন দেশের স্বার্থে, দলের স্বার্থে, দেশনেত্রীর স্বার্থে এবং দেশনায়ক তারেক রহমানের স্বার্থে। সর্বোপরি বিএনপি’র স্বার্থে সকলে ঐক্যবদ্ধ হউন।

সিএস/সিএম

Leave a Reply