আ’লীগের তাণ্ডবে মঞ্চত্যাগ করলেন মন্ত্রী মোশাররফ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম

চট্টগ্রাম: পথসভা মঞ্চে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। তার উপস্থিতিতেই তাণ্ডব শুরু করে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের নেতাকর্মীরা। তারা মুহূর্তে পথসভার মঞ্চ ও প্যান্ডেল গুঁড়িয়ে দেয়। এরপর শুরু হয় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ। বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির আজাদী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি এতটাই জটিল আকার ধারণ করে যে, গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন পথসভা না করে ওই এলাকা ত্যাগে বাধ্য হন। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে আজাদী বাজার সংলগ্ন নাজিরহাট ঝংকার মোড়ে রফিকুল আনোয়ার চত্বরে পথসভা আহ্বান করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। সেখানে দলীয় নেতাকর্মীরা জড়ো হন।

এরই মধ্যে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরি কমিটির সদস্য আবু তৈয়বের অনুসারিরা এসে মঞ্চের দখল নেন। স্লোগান দিতে দিতে তারা মন্ত্রীর উপস্থিতিতেই মঞ্চ ও প্যান্ডেলে ভাংচুর চালান। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নাজিরহাটে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আবু তৈয়বের সঙ্গে ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিমুদ্দিন মুহুরীর দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে তৈয়বের অনুসারিরা মঞ্চের দখল নিলে বাধা দেন নাজিমুদ্দিন মুহুরীর নেতাকর্মীরা। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গেলে তাদের দিকেও তেড়ে আসে আওয়ামী লীগ, এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে বাড়তি ফোর্স নিয়ে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নেয় পুলিশ।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আবু শাহেদ জানান, স্থানীয় আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের বিরোধের জেরে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের উপস্থিতিতে প্রথমে বাক-বিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে পাল্টা-পাল্টি স্লোগান আর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।

তিনি জানান, অবস্থা বেগতিক দেখে মন্ত্রী সভাস্থল ত্যাগ করে চলে যান। পণ্ড হয়ে যায় উপজেলা আওয়ামী লীগের পথসভা।

এবিষয়ে ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাবুল আকতার জানান, আজাদী বাজারে উপজেলার আওয়ামী লীগের পথসভা ঘিরে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন সেখান থেকে চলে যান। পরে তিনি নাজিরহাটে দলীয় সভায় যোগ দেন। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।

সিএস/সিএম