প্রকাশ: ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ০০:২৮:৫৭

আইন অমান্য করে পতেঙ্গা ও ইপিজেডে চলছে অবৈধ যান

সিটিজিসান, চট্টগ্রাম :
হাইকোর্টেও নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা-ইপিজেড-বিমানবন্দর সড়কে চলছে রুট পারমিটবিহীন মেক্সিমা, ইজিবাইক, ব্যাটারি চালিত রিক্সা এবং এইচপাওয়া। ট্রাফিক পুলিশের সহযোগীতায় অনুমোদনহীন এসব যানবাহন সড়কে চলাচল করছে। এতে যানজট সহ নানা দূর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে যানবাহন।

এসব যানবাহন চলাচলে বন্দর জোনের (ট্রাফিক) পুলিশের সহকারি কমিশনারকে দায়ী করে মহানগর পুলিশ কমিশনার, বন্দর উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এবং চসিক মেয়রকে স্বারকলিপি দেয় চালক-সহকারী ইউনিয়ন।

স্বারকলিপিতে বলা হয়-পতেঙ্গা-ইপিজেড-বিমানবন্দর গুরুত্বপূর্ণ সড়কে দায়িত্বপ্রাপ্ত বন্দর জোনের (ট্রাফিক) সহকারি কমিশনার মোশারফ হোসেন ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হওয়ার ইচ্ছায় হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এসব সড়কে অনুমোদনহীন যানগুলো চলাচলের সুযোগ করে দেন।

চালক ও সহকারী ইউনিয়ন’র সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ওয়াসিম বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গত ৬ জুন পতেঙ্গা-ইপিজেড-বিমানবন্দর গুরুত্বপূর্ণ সড়কে অবৈধভাবে তিন চাকার গাড়ির না চলাচলের জন্য আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তা অমান্য করে বন্দর জোনের সহকারি কমিশনার (ট্রাফিক), ইপিজেপের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মো. আব্দুলাহ এবং পতেঙ্গা থানার ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মো. মশিউর রহমান একতরফাভাবে অবৈধ যান চলাচলের সুযোগ করে দেই। যা অন্যায় ও অনভিপ্রেত।

হাইকোর্টে রিট আবেদনকারী চট্টগ্রাম অটোরিক্সা, অটোটেম্পু শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম খোকন বলেন, আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার অবৈধ তিন চাকার যানগুলো চলাচল না করার জন্য ট্রাফিক বিভাগ বন্দরকে অবহিত করেছি। পরে আমরা হাইকোর্টে রিট করি। রিটের পরিপ্রেক্ষিতে একটি নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এরপরে ট্রাফিক বিভাগের বিশেষ সহযোগিতায় এয়ারপোর্ট-পতেঙ্গা-ইপিজেডে চলছে এসব পারমিটবিহীন যান।

বিআরটিসি সুত্র জানায়, মহানগরের বারেক বিল্ডিং মোড়ের পর থেকে মহানগরীর পতেঙ্গা থানার কাটগড়-বিমানবন্দর সড়কে তিন চাকার পাঁচ শতাধিক যানবাহন চলছে। এসব যানবাহনের কোন ধরনরে রুট পারমিট নেই।

এ বিষয়ে বন্দর জোনের (ট্রাফিক) সহকারী কমিশনার মোশারফ হোসেন বলেন, ‘আমি ছুটিতে আছি। এ ব্যাপারে এখন কোনো কথা বলব না বলে মুঠোফোন কেটে দেন’।