চবিতে র‌্যাগিংয়ে বাধা দেয়ায় সাংবাদিককে মারধর ছাত্রলীগের

সিএসনিউজ/ চবি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এক শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিং দিতে দেখে বাধা দেয়ায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সদস্য(চবিসাস) আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার চবি প্রতিনিধি মিনহাজুল ইসলাম তুহিনকে মারধর করেছে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা।

সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের ফলে তুহিন কানে আঘাত প্রাপ্ত হয়েছে বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শুভাশীষ চৌধুরী।

এ বিষয়ে মারধরের শিকার মিনহাজুল ইমলাম তুহিন বলেন, ছাত্রলীগের ৪-৫ জন কর্মী এক শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করতে দেখতে আমি তাদেরকে নিষেধ করি। তখন তারা আমাকেও মারধর করে। বিষয়টি নিয়ে আমার সংগঠন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির মাধ্যমে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

তুহিন আরো বলেন, ইংরেজি বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের মাহমুদুল হাসান রুপক, মার্কেটিং বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের মাহিন হোসেন, ইতিহাস বিভাগ ২০১৬-১৭ সেশনের রাজীবুল আলম,ইংরেজি বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের আলী তানভীর মিলে আমাকে মারধর করে।

ঘটনার বিষয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী বলেন, গত কয়েকদিন ধরে ছাত্র নামধারী কয়েকজন সন্ত্রাসী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করছে। আমরা তাদেরকে সনাক্ত করার চেষ্টা করছি। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নিব।

তুহিনকে মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমাকে লিখিত ভাবে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য মাহমুদুল হাসান রুপক বলেন, যে ঘটনাটি ঘটেছে এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। আমি এর জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি।এদিকে সাংবাদিক মারধরের ঘটনা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (চবিসাস)।

সোমবার দুপুরে এক জরুরী সভায় সমিতির সভাপতি সৈয়দ বাইজিদ ইমন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সাংবাদিকদের হুমকি, মারধরসহ নির্যাতনের ঘটনা বেড়ে চলছে। এটি মুক্ত সাংবাদিকতার পরিপন্থী বলে আমরা মনে করি। তাই এসব ঘটনা বন্ধে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নেওয়ার দাবিও জানান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

সিএসনিউজ/রবি

Leave a Reply