অসহিষ্ণু হয়ে উঠছে অপরাধের অভয়ারণ্য রোহিঙ্গারা শিবিরগুলো

সিটিজিসান, অনলাইন ডেস্ক : কক্সবাজারে রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরগুলো ধীরে ধীরে অপরাধের অভয়ারণ্য হয়ে উঠছে । নানা জটিলতার মুখে অসহিষ্ণু হয়ে উঠছে রোহিঙ্গারা। গত ৮ মাসে আশ্রয় শিবিরে ১৫টি খুনসহ নানা অভিযোগে মামলা হয়েছে দেড় শতাধিক। আসামি হিসেবে গ্রেফতার হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন’শ রোহিঙ্গা। এখনই প্রতিরোধ করা না গেলে নিরাপত্তার জন্য তারা হুমকি হয়ে উঠতে পারে বলে শঙ্কা নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৫শে আগস্টের পর থেকে টেকনাফ এবং উখিয়া থানায় রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন অপরাধের ঘটনায় ৩৩৬ জনকে আসামী করে ১৬৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম অস্ত্র আইনের ১২টি মামলায় ৩০ জন, মাদক আইনের ৫৮টি মামলায় ৮৯ জন ও পাসপোর্ট আইনের ৪১টি মামলায় ৭১ জনকে আসামী করা হয়েছে।

অপরাধের ধরণ মামলা সংখ্যা গ্রেফতারকৃত আসামী
অস্ত্র ১২টি ৩০ জন
মাদক ৫৮টি ৮৯ জন
ধর্ষণ ২টি ২ জন
পাসপোর্ট আইন ৪১টি ৭১ জন
অপহরণ ৩টি ৯ জন
চোরাচালান ৫টি ১২ জন
চুরি ১টি ১ জন
ডাকাতির প্রস্তুতি ৫টি ২৩ জন

তবে সবচেয়ে বেশি আশংকাজনক হলো, আশ্রয় শিবিরগুলোতে হত্যাকাণ্ডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া। রোহিঙ্গাদের এধরণের আগ্রাসী আচরণে স্থানীয়দের মধ্যেও নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

অপরাধের ধরণ মামলা সংখ্যা গ্রেফতারকৃত আসামী
হত্যা ১৫টি ৭০ জন
অন্যান্য ঘটনা ২১টি ২৯ জন

এ অবস্থায় অপরাধ প্রবণ রোহিঙ্গাদের নিয়ন্ত্রণে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীগুলোকে আরো বেশি তৎপর হতে নির্দেশনা দিয়েছে বিভাগীয় প্রশাসন।

বর্তমানে টেকনাফ ও উখিয়ার ২০টি ব্লকে ভাগ করা আশ্রয় শিবিরগুলোতে নতুন পুরাতন ১১ লাখ ৩ হাজার রোহিঙ্গার অবস্থান রয়েছে। আর রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তায় টেকনাফ এবং উখিয়া থানার পাশাপাশি রয়েছে ৫টি নতুন পুলিশ ক্যাম্প। সে সাথে রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে যাওয়া ঠেকাতে রয়েছে মোট ৩২টি চেকপোস্ট।সুত্র : সময়টিভি