গ্রেনেড হামলার রায়: রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | সিটিজিসান.কম

ঢাকা: আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে ঘিরে রয়েছে রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রস্তুত রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা। শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। বিভিন্ন পয়েন্টে বসানো হয়েছে চেক পোস্ট।

বুধবার (১০ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের ট্রাইবুন্যালে ঘোষণা করা হবে বাংলাদেশের ইতিহাসের বর্বরোচিত এই হামলার রায়।

রায়কে ঘিরে ভোর থেকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোর থেকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা অবস্থান নিয়েছেন। প্রতিটি মানুষকে চাঁনখারপুল এলাকায় প্রবেশ করতে পুলিশের তল্লাশির মুখে পড়তে হচ্ছে।

ওই এলাকা ছাড়াও শাহবাগ, ফার্মগেট, বকশিবাজারসহ রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় বাড়তি পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকতে দেখা গেছে। সাদা পোশাকে মাঠে রয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। যেকোনো ধরনের নাশকতা ঠেকাতে প্রস্তুত তারা। রায়কে ঘিরে নাশকতা ঠেকাতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় নয়াপল্টনেও পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

এবিষয়ে পল্টন মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবু সিদ্দিক বলেন, বিএনপি অফিসের সামনে পুলিশ নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে। তবে বর্তমানে সেখানের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দপ্তরের জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী মহাপরিদর্শক সোহেল রানা বলেন, রায়কে ঘিরে কোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে পুলিশ সতর্ক রয়েছে।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চালানো গ্রেনেড হামলা। ১৪ বছর আগে সংগঠিত দেশের ইতিহাসের অন্যতম বর্বরোচিত এই হামলায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অল্পের জন্য বেঁচে গেলেও প্রাণ হারান দলটির মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন। আহত হন দলটির কয়েক শ নেতাকর্মী।

সিএস/সিএম