চট্টগ্রামে বাস থেকে ফেলে হত্যা, রিমান্ডে হেলপার

চট্টগ্রাম : নগরীর সিটি গেইটের একটু দুরে চলন্ত বাস থেকে এক যুবককে ফেলে হত্যার ঘটনায় চালকের সহকারী মো. মানিক সরকারকে তিনদিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রোববার মহানগর হাকিম আল ইমরান খান এই আদেশ দিয়েছেন।

মানিক সরকার (২৬) চট্টগ্রাম নগরীর আকবর শাহ থানার ফিরোজ শাহ কৈবল্যধাম আবাসিক এলাকার মোস্তাক সরকারের ছেলে।

পিবিআই পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, রোববার মানিককে আদালতে হাজির করে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত তিনদিন মঞ্জুর করেছেন।

এর আগে গত ২৭ আগস্ট দুপুরে নগরীর সিটি গেটের অদূরে গ্ল্যাক্সো কারখানার সামনে চলন্ত বাস থেকে পড়ে রেজাউল করিম রনি মারা যান। সেদিন সকালে রেজাউল বাঁশবাড়িয়া যান। সেখানে থেকে ফিরতি পথে ভাটিয়ারি নামেন। রেজাউল করিম ৪ নম্বর বাসযোগে ভাটিয়ারি এলাকা থেকে সিটি গেট এলাকায় ফিরছিলেন।

ভাড়া নিয়ে বাসের মধ্যে ঝগড়ার জেরে ধাক্কা দিয়ে তাকে ফেলে দেওয়া হয়। রেজাউলকে ফেলে দেওয়ার পর বাসের ভেতরের যাত্রীরা বারবার গাড়ি থামাতে বলেন। কিন্তু চালক বাস টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

একপর্যায়ে প্রায় ১০০ মিটার যাওয়ার পর সিটি গেটের কাছে বাস থামিয়ে চালক ও সহকারী পালিয়ে যান। এই ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ লোকজন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিটি গেট এলাকা প্রায় এক ঘন্টা অবরোধ করেন। পরে পুলিশ তাদের উঠিয়ে দেয়। পুলিশ বাসটি আটক করলেও চালক ও সহকারী পালিয়ে যায়। ২৮ আগস্ট রাতে আকবর শাহ থানায় বাস চালক দিদারুল আলম ও সহকারী মো. মানিককে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত রেজাউলের মামা আব্দুর রহমান।

লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার নুরিয়া হাজীর হাটে দিদার উদ্দিনের বাড়িতে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় চালকের সহকারী মো. মানিককে গতকাল শনিবার গ্রেফতার করে পিবিআই। তবে চালক দিদারুলকে গ্রেফ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান।